Home / খবর / বেড়েছে মুরগির দাম, সবজিতে স্বস্তি

বেড়েছে মুরগির দাম, সবজিতে স্বস্তি

সবজির দর স্বস্তির পর্যায়ে থাকলেও ক্রেতাদের ভোগাচ্ছে মুরগি। সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারগুলোতে মুরগির দাম কেজিতে ১০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। মাসের ব্যবধানে বাজার ভেদে বেড়েছে ৩০ টাকা পর্যন্ত। সবজির পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় কাঁচাবাজারে প্রায় সব ধরনের সবজির দাম গত সপ্তাহের মতোই অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে বেড়েছে ব্রয়লার মুরগির দাম।

শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে ঘুরে দেখা গেছে, খুচরা পর্যায়ে মুরগির প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায়। যা এক সপ্তাহ আগে ছিলো ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকার মধ্যে। আর মাসখানেক আগে ব্রয়লার মুরগির কেজি ছিলো ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা।

প্রাণীজ আমিষের এই সহজলভ্য খাদ্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় অসুবিধায় পড়েছেন নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষ। খিলগাঁওয়ের বাসিন্দা ফরিদা বেগম নামের একজন বলেন, এক কেজি গরুর মাংসের দাম ৬০০ টাকা। খাসির মাংসের দাম ৮০০ টাকা। এতো দাম দিয়ে মাংস কিনে খাওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব না। অনেক আগেই গরু-খাসির মাংস খাওয়া ছেড়ে দিতে হয়েছে। এখন ব্রয়লার মুরগিও মনে হচ্ছে কপাল থেকে উঠে যাবে। আগে এক কেজি বয়লার মুরগি কিনতাম ১৩০ টাকা দিয়ে, এখন ১৬০ টাকা লাগছে।

মুরগির দামে অস্বস্তি দেখা দিলেও স্বস্তি বিরাজ করছে সবজির দামে। শীতের সবজির পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় রাজধানীর বাজারগুলো পাকা টমেটো, গাজর, বেগুন, ফুলকপি, বাঁধাকপি তুলনামূলক কম দামেই কিনতে পারছেন ক্রেতারা।

গত সপ্তাহের মতো এখনো বাজারে সব থেকে দামি সবজির তালিকায় রয়েছে পটল ও ঢেঁড়স। এ দুটি সবজির কেজি এখনো কোনো কোনো বাজারে একশ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকায়। শশার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে। শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৪০ টাকায়। এছাড়া, মুলার প্রতি কেজি ১৫ থেকে ২৫ টাকা, বেগুন ২০ থেকে ৩০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, গাজর ১৫ থেকে ২৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহের ব্যবধানে এ সবজিগুলোর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

মাংসের বাজারে খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকা, গরুর মাংস ৭০০ টাকা, ব্রয়লার মুরগি ১৫০ টাকা, লেয়ার মুরগি ২২০ টাকা, সোনালী মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকায়।

সবজির মতো সপ্তাহের ব্যবধানে অপরিবর্তিত রয়েছে পেঁয়াজ, আলু ও ডিমের দাম। এদিকে বাজারে ভোজ্যতেল, পেঁয়াজ, রসুন, আদা, মসলার দামও বেড়েছে। কেজি প্রতি ৫-১০ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে এসব রান্নার উপকরণ। দেশি পেঁয়াজ ৩০ টাকা, আদা ৫০-৬০ টাকা, রসুন ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

Check Also

করোনা আক্রান্তের ১৩তম দিনে ভালো আছেন খালেদা জিয়া

করোনায় আক্রান্ত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ১৩তম দিনে অনেকটাই ভালো বলে জানিয়েছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *