Home / খবর / ক্রেতা শূন্য বইমেলা, অনেক স্টল বন্ধ

ক্রেতা শূন্য বইমেলা, অনেক স্টল বন্ধ

দেশে সরকার ঘোষিত সাতদিনের লকডাউনের মধ্যেও চালু রয়েছে বইমেলা। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকবে। তবে গণপরিবহন বন্ধসহ বেশ কিছু বিধি-নিষেধ থাকায় ক্রেতারা মেলামুখী হচ্ছে না। ফলে বেকায়দায় পড়েছে প্রকাশনা সংস্থাগুলো। তাই আপাতত প্রকাশকদের অনেকেই স্টল বন্ধ রেখেছেন।

এছাড়া রবিবারের ঝড়ে অনেক স্টলের বইসহ অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সোমবার বন্ধ ছিল অনেক স্টল।

সোমবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বইমেলার প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা গেছে, লকডাউনের প্রথম দিনে মেলাপ্রাঙ্গণ ছিল অনেকটাই ক্রেতা শূন্য। দুপুর ১২টা থেকে শুরু হওয়া মেলায় ক্রেতা যেমন আসেননি, তেমনই আসেননি অনেক স্টলের কর্মীরাও। তাই বন্ধ ছিল বেশকিছু স্টল। এর মধ্যে কিছু প্যাভিলিয়নও আছে। বেশিরভাগ স্টলের কর্মীরাই বই শুকাতে আর সাজাতে ব্যস্ত। আবার ক্রেতা না থাকায় কেউ কেউ পার করছেন অলস সময়।

সাহিত্য বিলাস স্টলের কর্মকর্তা আব্দুল কাদির ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বই রোদে শুকাচ্ছিলেন, আর স্টলের বই সাজাচ্ছিলেন।

তিনি জানান, লকডাউনের কারণে কর্মচারীরা আসতে পারছেন না। তাই অনেকেই স্টল খুলতে পারছেন না। তাছাড়া ঝড়ে অনেক স্টল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় অনেকেই তাদের স্টল খুলেননি।

সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় কয়েকজন প্রকাশক স্টল বন্ধ করে বইমেলা থেকে একেবারেই চলে গেছেন বলেও জানা গেছে। এ বিষয়ে অন্যপ্রকাশের একজন বিক্রেতা বলেন, রাতের বৃষ্টিতে অনেকেরই বই ভিজে গেছে। ওপর থেকে পানি পড়েছে এবং বৃষ্টির ঝাপটাতেও বেশকিছু বই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্টলের অবকাঠামোরও ক্ষতি হয়েছে।

Check Also

জাম বিক্রিতে আয় ১৫ লাখ টাকা!

পায়রা তীরের লবন প্রবণ এলাকা বরগুনা। জেলা শহর থেকে পিচ ঢালাই পথে সাগরতীরের পাথরঘাটা। সদর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *