Breaking News
Home / খবর / ভারতে আটকে পড়া ৩৭ নারী-শিশু দেশে ফিরলো

ভারতে আটকে পড়া ৩৭ নারী-শিশু দেশে ফিরলো

কলকাতায় অবস্থিত বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন, পশ্চিমবঙ্গের নারী ও শিশু বিকাশ এবং সমাজ কল্যাণ দপ্তরের যৌথ উদ্যোগে ভারতে পাচারের শিকার ৩৭ জন নারী ও শিশুকে বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে।

ভারতের পেট্রাপোল এবং বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হয়। জানা যায়, ভারতের পশ্চিমবঙ্গে প্রায় দেড় শতাধিক বাংলাদেশি নারী ও শিশু বিভিন্ন সময়ে পাচার কিংবা অবৈধভাবে বা ভুলক্রমে ভারতে এসে আটক হয়। পরে তাদের বিভিন্ন সেফ হোমে রাখা হয়।

আটককৃত এইসব নারী ও শিশুদের বিষয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ডিরেক্টরেট অবচাইল্ড রাইটস অ্যান্ড ট্রাফিকিং বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন, কলকাতাকে যথাযথ প্রক্রিয়ায় অবহিত করে।

পরে বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন এইসব সেফ হোম পরিদর্শন করে আটকেপড়া বাংলাদেশি নারী ও শিশুদের তথ্য সংগ্রহ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়কে জানায়। পরবর্তীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সেইসব বাংলাদেশিদের নাগরিকত্ব যাচাইয়ের প্রক্রিয়া সম্পাদনের পর দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ২৫ জানুয়ারি ৩৮ জন নারী ও শিশুকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর পর ৩৭ নারী-শিশু পাঠানো দ্বিতীয় প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলো। আগামী দিনে এই ধরণের প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে কলকাতায় অবস্থিত বাংলাদেশ উপ দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন কলকাতার প্রথম সচিব (রাজনৈতিক) ও দূতালয় প্রধান শামীমা ইয়াসমিন স্মৃতির প্রতিনিধিত্বে বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন কলকাতার একটি বিশেষ প্রতিনিধি দল এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে স্থানীয় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কাছে ৩৭ জন নারী-শিশুকে হস্তান্তর করা হয়।

৩৭ নারী ও শিশুর মধ্যে চার জন পূর্ণবয়স্ক, ১২ জন কিশোরী ও ২১ জন কিশোর রয়েছে। যাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে। এরা সবাই ভারতের বিভিন্ন সেফ হোমে প্রায় দুই বছর থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত আটক ছিলেন।

Check Also

কারিগরি শিক্ষার প্রসারে বিত্তবানরা এগিয়ে আসুন: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কারিগরি শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *