Home / খবর / তৃতীয় দিনেও চলছে ছাত্রীদের আন্দোলন, সন্ধ্যার পর নতুন কর্মসূচি

তৃতীয় দিনেও চলছে ছাত্রীদের আন্দোলন, সন্ধ্যার পর নতুন কর্মসূচি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের প্রভোস্ট ও সিন্ডিকেট সদস্য নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জাফরিন আহমেদ লিজা ও তার প্রভোস্ট কমিটির পদত্যাগ দাবিতে টানা তৃতীয় দিনের মতো হলটির ছাত্রীদের আন্দোলন চলছে।

দাবি মেনে নিতে ছাত্রীরা আজ শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত সময় বেঁধে দিলেও বিকাল ৫টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বরে পুনরায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে তারা। ছাত্রীদের বেঁধে দেয়ার সময়ের মধ্যে দাবি মেনে নেওয়া না হলে নতুন কর্মসূচির কথা জানানো হয়েছে।

এর আগে, গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় হলের অফিস রুমে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের ছাত্রীরা। এসময় ছাত্রীরা প্রাধ্যক্ষের কক্ষে তালা দিয়ে ২৭ ঘণ্টার আল্টমেটাম দেন তারা।

আন্দোলনরত ছাত্রীরা বলেন, বিকেল থেকে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বরে অবস্থান নিয়েছি। সন্ধ্যার মধ্যে কোনো সিদ্ধান্ত না আসলে তখন পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা আমাদের অবস্থানে অনড় আছি।

এদিকে, গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বেগম সিরাজুন্নেছা চৌধুরী ছাত্রী হলের ভারপ্রাপ্ত প্রভোস্ট হিসেবে সহযোগী অধ্যাপক জোবেদা কনক খানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অধ্যাপক জাফরিন করোনা আক্রান্ত হওয়ায় একই প্রভোস্ট বডির সদস্য জোবেদা কনক খানকে ভারপ্রাপ্ত প্রভোস্ট হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানান উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য বলেন, আগের প্রভোস্টকে প্রত্যাহার করা হয়নি। কিন্তু উনি অসুস্থ, করোনায় আক্রান্ত। এজন্য ছুটিতে আছেন। তার অনুপস্থিতিতে সহযোগী অধ্যাপক জোবেদা কনক খানকে ভারপ্রাপ্ত প্রভোস্ট হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

শনিবার বিকেলে আন্দোলনরত ছাত্রীরা বলেন, নতুন করে ভারপ্রাপ্ত প্রভোস্ট হিসেবে যাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তিনি সহকারী প্রভোস্ট। আমাদের দাবি ছিলো পুরো প্রভোস্ট টিমকেই পদত্যাগ করতে হবে। আমাদের দাবি বাস্তবায়ন হয়নি। দাবি আদায় হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

ছাত্রীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপাচার্যের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি দল আলোচনায় বসে। কিন্তু আলোচনা ফলপ্রসূ না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা আবারও আন্দোলন শুরু করেন।

তারা বলেন, আমাদের তিন দফা দাবি ছিলো। দাবিগুলো হলো- প্রভোস্ট কমিটির পদত্যাগ করতে হবে; দ্রুত দায়িত্বশীল নতুন প্রভোস্ট কমিটি নিয়োগ দিতে হবে; হলের যাবতীয় সমস্যা সমাধান করতে হবে।

শাবিপ্রবিতে ছাত্রীদের আন্দোলনের শুরু গত বৃহস্পতিবার রাতে। এদিন ছাত্রীরা হলের সমস্যা নিয়ে তাদের রিডিং রুমে বসে আলোচনা করেন। পরে সমস্যার কথাগুলো প্রভোস্টকে বলার জন্য হলে আসার অনুরোধ জানান।

তখন প্রভোস্ট জাফরিন আহমেদ লিজা অসুস্থতার কথা জানালে ছাত্রীরা প্রভোস্ট বডির একজন সদস্যকে অল্প সময়ের জন্য হলে আসার অনুরোধ জানান এবং বিষয়টি জরুরি বলে উল্লেখ করলে প্রভোস্ট শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অসদাচরণ করেন।

এরপরে শিক্ষার্থীরা হল থেকে বের হয়ে এদিন রাত দুইটা পর্যন্ত উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে উপাচার্য দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে তারা হলে ফিরে যান।

Check Also

মোমেন দেশবাসীর কাছে কৌতুক অভিনেতায় পরিণত হয়েছেন: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ না, শুধু আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বেহেশতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.